সাম্প্রতিক পোস্ট

গাছের অক্সিজেন নিয়ে আমরা বেঁচে থাকি

মানিকগঞ্জ থেকে রাশেদা আক্তার
“একটাই পৃথিবী, প্রকৃতির ঐকতানে টেকসই জীবন” প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে বিশ^ পরিবেশ দিবস ২০২২ উপলক্ষে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের চরমত্ত গ্রামে প্রত্যয় কিশোরী সংগঠন ও আলোর পথিক নারী সংগঠনের যৌথ আয়োজনে এবং বারসিক এর সহযোগিতায় আলোচনা সভা ও বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।


আলোর পথিক নারী সংগঠনের সভাপতি সুমি আক্তারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভার শুরুতেই দিবসের প্রেক্ষাপট ও গুরুত্ব তুলে ধরে আলোচনা করা হয়। বলা হয়, আমরা পৃথিবীতে বাস করি। নানা ভাবে দূষণের ফলে দিন দিন এই পৃথিবী বসবাসের অনুপযোগি হয়ে যাচ্ছে। যদি এই পৃথিবীটা বসবাসের অযোগ্য হয়ে যায় তাহলে আমরা কোথায় যাব। পৃথিবীর মত তো আর কোনো গ্রহ নেই যেখানে গিয়ে আমরা বসবাস করতে পারি। তাই এই পৃথিবীটা যাতে বসবাসের অনুপযোগি না হয় তার জন্য আমাদেরই চেষ্টা করতে হবে। পৃথিবীটাকে বাসযোগ্য করে রাখতে হবে। আর এই জন্য পরিবেশের ক্ষতি করা কোনো ভাবেই উচত নয়। এর জন্য বেশি বেশি গাছ লাগাতে হবে। মানুষসহ পশু-পাখির উপযোগি গাছ লাগাতে হবে। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কীটপতঙ্গের কথাও আমাদের ভাবতে হবে। কারণ আমাকে ভালো থাকতে হলে পৃতিবীতে যা কিছু আছে সবাইকে নিয়েই ভালো থাকতে হবে।


মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালের সহকারী শিক্ষক মো: গোলাম ফারুক বলেন, ‘বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে বারসিক এর এই আয়োজন সত্যিই চমৎকার। তারা মাসব্যাপি বৃক্ষ রোপণের আয়োজন করেছে। পরিবেশ রক্ষায় গাছের ভূমিকা অপরিসীম। আমি বাড়িতে অনেক দেশি ফলের গাছ লাগাইছি। অনেকে খালি কাঠ গাছ লাগায়। আমাদের ফলজ গাছ রোপণ করতে হবে। আমরা বারসিক’র সাথে ধলেশ্বরী নদী খননের জন্য কাজ করেছি। আজ নদী খনন হয়েছে। পরিবেশ রক্ষায় আমাদের সবাইকে কাজ করতে হবে।”


সুমি আক্তার বলেন, “বিশ^ পরিবেশ দিবস উপলক্ষ্যে আজকে আমরা পরিবেশের অনেক বিষয় এখানে জানতে পারলাম। আমরা জানলাম গাছ আমাদের জন্য কত উপকারী। বারসিক আজ যে গাছগুলো আমাদের দিলো তা আপনারা সবাই লাগাবেন। গাছের যতœ করবেন। সেই সাথে নিজের বাড়ির চারপাশ পরিষ্কার রাখবেন।”
মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালের সহকারী শিক্ষক মো: দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘একটি গাছ একটি জীবন, পরিবেশ রাখে সংরক্ষণ। আমাদের সবাইকে বেশি করে গাছ লাগাতে হবে। গাছের যত্ন করতে হবে।’
নারী সংগঠনের কোষাধ্যক্ষ ফাতেমা বেগম বলেন, ‘আজ বারসিক অফিস থেকে আপনাদের গাছ দিল। এই গাছ আপনার রোপণ করবেন। গাছে পানি দিবেন। গাছের পরিচর্যা করবেন। গাছের ফল অনেক পুষ্টি দেয়। আপনারা নিজেরাও বেশি করে গাছ লাগাবেন।’


কিশোরী সংগঠনের সদস্য অনন্যা আক্তার বলেন, ‘গাছ আমাদের অক্সিজেন দেয়। গাছের অক্সিজেন নিয়ে আমরা বেঁচে থাকি। নানা রকম ফল দেয়। আমাদের যখন গরম লাগে আমরা গাছের নীচে বসলে ছায়া পাই। গাছের উপকারিতা অনেক। আমরা সবাই গাছ রাগাবো। গাছের যতœ করবো।’
আলোচনা শেষে অংশগ্রহণকারীদের মাঝে ২০০টি ফলজ, বনজ ও ৗষধী গাছ বিতরণ ও রোপন করা হয়।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: