সাম্প্রতিক পোস্ট

আমাদের সৌখিন শিল্প, আমাদের উপার্জনের বাড়তি মাধ্যম

রাজশাহী থেকে আয়েশা তাবাসসুম

হাতের কাজের জন্য বাঙালী নারীদের সুনাম দেশে এবং দেশের বাইরে খ্যাতি অর্জন করেছে। বাঙালি নারীরা তদের মেধা এবং নিজস্ব জ্ঞান দিয়ে এই শিল্পকে আরও সমৃদ্ধ করেছেন। গ্রামীণ নীরারা এই হাতের কাজের দক্ষ কারিগর। তারা সুই সুতা দিয়ে বিভিন্ন নকশা তৈরি করে সাধারণ কাপড়কেও করে তোলে অসাধারণ। শুধু সুই সুতার কাজই নয় বরং তারা রং তুলি দিয়েও কাপড়ের নকশা তৈরী করে। রং দিয়ে তারা ব্লক বাটিক, এ্যাম্বুস, আলপনার কাজ করে থাকে শুধু তাই নয় কাপড় কেটেও কাপড়ের উপর বিভিন্ন নকশা করে কাপড়কে করে তোলে নজর করা সুন্দর এটাকে এপ্লিকের কাজ বলে। এ ছাড়াও উলের সুতো দিয়ে তৈরী করে ছোট বড়দের শীতের নানা পোশাক যেমন সুয়েটার, টুপি,মাফলার ইত্যাদি।

রাজশাহী জেলার তানোর উপজেলার গুবির পাড়া গ্রাম। এই গ্রামের অধিকাংশ নারীই এই হাতের কাজের সাথে যুক্ত। তারা নিজেদের ব্যবহারের জন্য এবং অর্ডার পাওয়ার ভিত্তিতে কাপড়ের সেলাই, নকশার কাজ করে যাচ্ছেন। এতে করে সংসারে বাড়তি উপার্জন করতে সক্ষম হয়েছেন। এ হাতের কাজের মাধ্যমে গ্রামের নারীরা বেশ স্বাবলম্বী হয়েছেন ।

তাদের এ কাজকে বেগবান করার জন্য সম্প্রতি বারসিক ও জনগোষ্ঠীর উদ্যোগে এই হাতের কাজের সাথে সম্পৃক্ত নারীদের নিয়ে একটি সংগঠন তৈরী করা হয়। উক্ত সংগঠনের নাম দেয়া হয় “গুবির পাড়া হস্ত শিল্প ও নারী উন্নয়ন সংগঠন। উপস্থিত সকল সদস্যের মতামতের ভিত্তিতে উক্ত সংগঠনের সভাপতি নির্বাচিত হন মোসাঃ হাজেরা বিবি এবং সহসভাপতি নির্বাচিত হাসনা হেনা।

উক্ত সংগঠনের সভাপতি হাজেরা বেগম বলেন, ‘আমরা এ সংগঠনের মাধ্যমে আমাদের হাতের কাজকে আরও সমৃদ্ধ করবো। একে অন্যের সাথে সেলাই শিখন বিনিময় করবো। আমরা আমাদের তৈরিকৃত পণ্য বাজারে প্রবেশাধিকারের জন্য চেষ্টা করবো। সবাই মিলে কাজ করলে আমাদের আন্তরিকতা বেড়ে যাবে। আমরা সবাই মিলে এ সংগঠন আরও মজবুত ও শক্তিশালী করার চেষ্টা করো আগামীতে।’

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: