সাম্প্রতিক পোস্ট

জলাবদ্ধতা সমাধানের উদ্যোগ নিন

সাতক্ষীরা থেকে তামান্না পারভীন

সাতক্ষীরা পৌরসভার রাজারবাগান উত্তর পাড়া লিচুতলার মানুষ প্রতিবছর বর্ষাকালে ভয়াবহ জলাবদ্ধতার শিকার হয়। বর্ষা মৌসুমে প্রায় ৪-৫ মাস এই এলাকার মানুষ পানিবন্দি থাকে। গ্রামের নিচু ঘরগুলোর অধিকাংশই পানিতে ডুবে থাকে। জলাবদ্ধতার কারণে যাতায়াত ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়। মানুষ নিজেই আশ্রয়হীন হয়ে পড়ে, আর গৃহপালিত গবাদি পশুর কথা তো বাদই দিলাম।

এলাকায় পানিবাহিত রোগজীবাণুর সংক্রমণ ঘটে। একই সাথে ফসলের আবাদ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ কারণে কৃষিজীবী মানুষের আর্থিক অবস্থা ভেঙে পড়ে এবং কৃষিতে অনেক সংকট দেখা দেয়। জলাবদ্ধতার কারণে এলাকার অনেক গাছগাছালিও মরে যায়। বছরের অন্য সময়ে এই গ্রামের মানুষের জীবনযাত্রার মান স্বাভাবিক থাকলেও বর্ষাকালে জলাবদ্ধতার কারণে উত্তর পাড়ার মানুষকে কর্মসংস্থানের জন্য এদিক ওদিক ছোটাছুটি করতে হয়। কর্মসংস্থান হারায় অনেক মানুষ।

জলাবদ্ধতাকালীন সময়ে এলাকার শিশুরা স্কুলে যেতে পারে না। সবাই ঘরবন্দী হয়ে থাকে। চারদিকে থাকে নোংড়া ও বিষাক্ত পানি। আমাদের পাড়ার মধ্যে কোন বিশুদ্ধ পানির টিউবয়েল না থাকায়, আমাদেরকে এই বিষাক্ত পানি পাড়ি দিয়ে বিশুদ্ধ খাবার পানি আনতে যেতে হয়। ফলে মানুষ মারাত্মকভাবে চর্মরোগের শিকার হয়।

জলাবদ্ধতার সময় এলাকার কাঁচা ও অপরিকল্পিত সৌচাগারগুলো পানির সাথে একাকার হয়ে যায়। এই দূষিত পানি সম্পূর্ণ এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে, এ কারণে এলাকার মানুষ ও বিশেষ করে শিশুরা ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়।

আমাদের এলাকার জলাবদ্ধতার মূল কারণ পানি নিষ্কাশনের কোন ব্যবস্থা বা ড্রেন নেই। প্রশাসনের কাছে আমাদের সমস্যার কথা জানালে, তারা এসে পরিদর্শন করে যান কিন্তু তারা সমস্যাটি সমাধানের জন্য কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেন না। তাই বর্ষা মৌসুম শুরুর আগেই জলাবদ্ধতার হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানাই।

লেখক: সদস্য, শিক্ষা, সংস্কৃতি ও বৈচিত্র্য রক্ষা টিম

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: