সাম্প্রতিক পোস্ট

সবুজ ও বৈচিত্র্যপূর্ণ নগরীর প্রত্যাশা রাজশাহীর তরুণদের

বরেন্দ্র অঞ্চল প্রতিনিধি
প্রাণ প্রকৃতি, পরিবেশ সুরক্ষা, বহুত্ববাদ সমাজ উন্নয়ন ও নগরের প্রান্তিক মানুষের সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে রাজশাহীর তরুণরা মুখোমুখী সংলাপে অংশগ্রহণ করেছিলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র প্রার্থীদের সাথে। বিগত এক সপ্তাহে রাজশাহীর তরুণ সংগঠনের সদস্যরা নিজ উদ্যোগে রাজশাহীর মেয়র প্রার্থীদের সাথে তাদের দাবি এবং প্রত্যাশাগুলো তুলে ধরেন। তরুণরা মনে করেন, একজন মেয়র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হলে যেমন অনেক বেশি দায়িত্ব বেড়ে যায়, তেমনি যারা নির্বাচিত হতে পারবেননা তাদেরও উপর সমাজ ও পরিবেশ উন্নয়নে মানবিক ভূমিকা রাখতে হয়। সকলের সমন্বয় ও সহযোগিতায় একটি সমাজের সার্বিক উন্নয়ন হয়। রাজশাহীর তরুণ সংগঠন বরেন্দ্র শিক্ষা সংস্কৃতি বৈচিত্র্য রক্ষা কেন্দ্র, ইয়্যাস (ইয়্যুথ এ্যাকশন ফর সোসাল চেঞ্জ), রোটার‌্যাক্ট ক্লাব অব রাজশাহী, সেভ দ্যা ন্যাচার এন্ড লাইভ সোসাইটি এবং সহযোগী সংগঠন বেসরকারি উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক এর যৌথ আয়োজনে উক্ত মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়। মুখোমুখি মতবিনিময় অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে তরুণরা রাজশাহীর উন্নয়নে তাদের ১৮ দফা বিশিষ্ট দাবি তুলে ধরেন। তরুণরা মনে করেন, একজন নগর পিতা চাইলে নগরীকে সকল প্রাণের বাসযোগ্য সবুজ ও নিরাপদ পরিবশ সৃষ্টি করতে পারেন।

city

তরুণদের দাবিগুলোর মধ্যে ছিলো
১। নগরীর রাস্তাগুলোর দ্রুত মেরামত করতে হবে। সবুজ শহর হিসেবে প্রতিটি রাস্তায় সাইকেল লেন করতে হবে।
২। নগরীতে গাছের সংখ্যা দিনে দিনে কমে যাচ্ছে। বড় গাছসহ সকল ধরনের গাছ কর্তন বন্ধ করতে হবে। একই সাথে দেশীয় প্রজাতির বৃক্ষরোপণ করতে হবে। বড় বড় গাছগুলোর তালিকা করে সেগুলো নিদর্শন হিসেবে সংরক্ষণ করতে হবে।
৩। নগরীর অধিকাংশ এলাকার ড্রেনেজ ব্যবস্থা (পয়ঃনিষ্কাশন) ভালো না থাকার ফলে সামান্য বৃষ্টিতে এলাকাগুলোতে সৃষ্টি হয় জলবদ্ধতা। এগুলো দ্রুত সংস্কার করতে হবে। খাল খাড়ি এবং জলাধারগুলো দখল দূষণরোধ করে এগুলোর সুরক্ষা করতে হবে।
৪। গাছ কমে যাবার ফলে নগরীতে পাখির বসবাস কমে গেছে, একই সাথে তাদের আহার এবং বাসস্থান প্রজননের সমস্যা দেখা দিয়েছে। নগরীর বিভিন্ন এলাকাগুলোকে পাখির অভয়ারণ্য ঘোষণা করতে হবে।
৫। পানি সংকট সমাধানে একই সাথে জ্বালানির অপচয়রোধে ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় নগরীর পুকুরসহ প্রাকৃতিক জলাধারগুলো সংস্কার এবং ভরাট বন্ধ করতে হবে।
৬। শহর পরিচ্ছন্ন রাখতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ডাস্টবিন স্থাপন করতে হবে।
৭। বরেন্দ্র অঞ্চলের অন্যতম পদ্মা নদী দখল দূষণ বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। নদী দূষণ রোধে নদী পাড়ে দর্শনার্থীদের জন্যে পর্যাপ্ত পরিমাণে ডাস্টবিন স্থাপন করতে হবে। নদী ড্রেজিং করে পানির স্বাভাবিক প্রবাহ নিশ্চিত করতে হবে।
৮। নগরীতে নিরাপদ ও নারীবান্ধব পাবলিক টয়লেট স্থাপন করতে হবে।
৯। নগরীর বস্তিবাসী শিশুদের জন্যে শিক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। কমিউনিটি ভিত্তিক প্রি-স্কুল স্থাপন করতে হবে।
১০। নগরীতে সকল খেলার মাঠ অবমুক্ত করণ করতে হবে এবং খেলার পরিবেশ তৈরিতে সহায়তা করতে হবে।
১১। প্রান্তিক শিশুদের চিত্তবিনোদনের ব্যবস্থা করতে হবে।
১২। সহনশীল ও সৌহার্দ্যপূর্ণ সমাজ বিনির্মানে নবীণ প্রবীনদের মধ্যে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে হবে। যাতে তাদের মধ্যে সম্পর্ক তৈরি হয়। প্রবীণ ও বিশেষভাবে সক্ষম ব্যক্তিদেও উন্নয়নে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।
১৩। তরুণদের কর্মসংস্থান, বেকার তরুণদের ভাতা, যারা ব্যবসা করতে চায় তাদের জন্যে ব্যাংক ঋণ সুবিধাসহ সকল সুবিধা ও কর্মসংস্থান, ট্রেনিং এর ব্যবস্থা করতে হবে।
১৪। যানজট নিরসনে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। পর্যাপ্ত পরিমাণে ফুটওভার ব্রীজ নির্মাণ করতে হবে।
১৫। চিত্তবিনোদনের জন্যে রাজশাহীতে একাধিক সিনেমা হল প্রতিষ্ঠা করতে হবে।
১৬। রাজশাহীর সকল ঐতিহ্য,স্থাপনাগুলো রক্ষা করতে হবে।
১৭। ওয়ার্ড ভিত্তিক জনপাঠাগার তৈরি করতে হবে।
১৮। বেওয়ারিশ কুকুরের রোগবালাই এর কারণে পরিবেশ এর ক্ষতি হচ্ছে। এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে হবে।

তরুণরা বিভিন্ন মতবিনিময় ও সাক্ষাতের মধ্যে দিয়ে উক্ত দাবিগুলো মেয়র প্রার্থীদের হাতে তুলে দেন। সকল পর্যায় থেকে তরুণদের এই ব্যতিক্রম এবং উপযোগী উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। তরুণদের উক্ত দাবিগুলোর সাথে একমত পোষণ করেন বর্তমান মেয়র প্রার্থীগণ। রাজশাহীর মেয়র প্রার্থীগণ প্রত্যেকে একমত পোষণ করেন যে নির্বাচিত হলে এবং নির্বাচিত না হলেও তরুণদের নিয়মিত উদ্যোগগুলোর সাথে থেকে রাজশাহী নগরীর উন্নয়নে কাজ করে যাবেন।

city--

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের আগ্রহী তরুণরা এর মধ্যে দিয়ে জানান দিতে চায় পরিবেশ প্রতিবেশ রক্ষা, বহুত্ববাদ সমাজ উন্নয়ন এবং নগরের বস্তিবাসীসহ প্রান্তিক মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় একজন নির্বাচিত প্রতিনিধির যেমন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব আছে তেমনি অন্যান্য সকল মানুষের ভূমিকা বা সহযোগিতা দরকার। উক্ত মতবিনিময় অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বরেন্দ্র শিক্ষা সংস্কৃতি বৈচিত্র্য রক্ষা কেন্দ্রের সভাপতি জাওয়াদ আহমেদ রাফি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইয়্যাস এর সভাপতি শামিউল আলিম শাওন, বারসিক বরেন্দ্র অঞ্চল সমন্বয়কারী শহিদুল ইসলামসহ উক্ত সংগঠনের তরুণ সদস্যরা।

kkk

উল্লেখ্য যে, নির্বাচন কমিশনের তথ্য মতে, আসছে ৩০ জুলাই রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে মোট পাঁচজন, ৩০টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৬০ জন এবং সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ৫২ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতার সুযোগ পাচ্ছেন। এর মধ্যে মেয়র পদে প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগের এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, বিএনপির মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, ইসলামী আন্দোলনের শফিকুর রহমান, গণসংহতি আন্দোলনের এডভোকেট মুরাদ মোর্শেদ ও স্বতন্ত্র হাবিবুর রহমান।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: