আমরা একটি সবুজ গ্রাম তৈরি করতে চাই

সিংগাইর মানিকগঞ্জ থেকে শাহীনুর রহমান
সিংগাইর উপজেলার বলধারা ইউনিয়নের ছোটকালিয়াকৈর মজিবর রহমান বিশ^াসের কৃষিপ্রতিবেশবিদ্যা শিখন কেন্দ্রে কৃষকের অধিকার সুরক্ষা ও জলবায়ু সংকট মোকাবেলায় যুব সমাজের ভূমিকা বিষয়ে যুবদের সাথে এক মতবিনিয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে সম্প্রতি। বেসরকারি উন্নয়ন গবেষণা সংস্থা বারসিক’র সহযোগিতায় সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।
সিংগাইর উপজেলা সবুজ সংহতি সংগঠনের সদস্য মোদাচ্ছির হোসেন এর সভাপতিত্বে বারসিক কর্মকর্তা শাহীনুর রহমান এর সঞ্চালনায় সভার মুল উদ্দেশ্য তুলে ধরেন বারসিক সিংগাইর এলাকা কর্মসূচী সমন্বয়ক শিমুল কুমার বিশ^াস। এছাড়াও সভায় আলোচনায় অংশ নেন জগন্নাথ বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও তরুণ কৃষি উদ্যোগক্তা মোঃ আালমাছ আলী, আবুবকর, নাইম হোসেন, সিয়াম, মোঃ মামুন হোসেন প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কৃষিপ্রতিবেশবিদ্যা শিখন কেন্দ্রের পরিচালক, মাজিবর রহমান বিশ^াস, কৃষক সেকেন্দার আলী, লিয়াকত হোসেন, মোঃ উজ্জল হোসেন।


আলোচনায় আলমাছ হোসেন বলেন, ‘বর্তমান সময়ে জলবায়ুর পরিবর্তনের কারণে প্রাণ, প্রকৃতিসহ মানুষের জীবনকে বিপন্ন করে তুলেছে। বিশেষ করে জলবায়ূ পরিবর্তনজনিত সমস্যার সন্মূখীন হচ্ছে নারী শিশু ও প্রবীণ মানুষ। তাছাড়া কৃষি ক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বিভিন্ন কোম্পানির প্রলোভন ও অধিক ফলনের আশায় হাইব্রিড চাষে প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং অতিমাত্রায় রাসায়নিক কীটনাশকের এর ব্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাসায়নিক সার ও কটিনাশকের প্রভাব পড়ছে আমাদের প্রাণ প্রকৃতি ও জনস্বাস্থের উপর।’


আবু বকর বলেন, ‘কৃষক সারাদিন কাজ করে কৃষি উপকরণের দাম সহজলভ্য না হওয়ার কারণে নায্যমূল্য পাচ্ছে না। ফসল সংরক্ষণের জন্য হিমাগার না থাকায় খুব কম দামে কৃষকের ফসল বিক্রি করতে হচ্ছে। কৃষকের কৃষি কাজ সহজ করার জন্য সরকারি বরাদ্দ বৃদ্ধি করতে হবে। জলবাযু পরিবর্তন রোধ করতে হলে আমাদের বৃক্ষ রোপণ বৃদ্ধি করতে হবে।’ মুদাচ্ছির হোসেন বলেন, ‘বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ। কৃষকের অধিকার সুরক্ষায় স্থানীয় চর্চা বৃদ্ধি ,প্রাকৃতিক সম্পদের সুষ্ঠ ব্যবহার, কৃষকের পছন্দ অনুযায়ী এলাকা উপযোগী ফসল চাষ করার পাশাপশি বিজ্ঞানভিক্তিক কৃষি সমন্বয় করতে হবে। পরিবেশ সুরক্ষায় সবুজ সংহতি জোরদার করতে হতে হবে। তাছাড়া জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি নিরসনে যুব সমাজ নানামূখী উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। আমরা একটি সবুজ গ্রাম তৈরি করতে চাই।’


কৃষিপ্রতিবেশবিদ্যা চর্চাকেন্দ্রের পরিচালক মজিবার রহমান বিশ^াস বলেন, ‘আমাদের কৃষি ব্যবস্থা ছিল প্রকৃতিনির্ভর। কিন্তু বর্তমানে আবহাওয়ার পরিবর্তন হচ্ছে নিয়মিত। কৃষিতে কৃষকের নিজস্ব স্বাধীনতা হারাচ্ছে। প্রকৃতি ও পরিবেশ ঠিক রাখতে কৃষকের নিজস্ব চর্চা বৃদ্ধি করতে হবে। আমার বাড়িটি একটি কৃষিপ্রতিবেশ চর্চা সমৃদ্ধ বাড়ি। কৃষির সকল উপদানই আমার বাড়িতে আছে। আপনারা যুব সমাজ আমার আমার বাড়ি থেকে কৃষি চর্চার অভিজ্ঞতা নিতে পারেন।’


বারসিক সিংগাইর এলাকা কর্মসূচী সমন্বয়ক শিমুল কুমার বিশ^াস বলেন, ‘যুব সমাজ আমাদের দেশের বড় একটি শক্তি। আমাদের যুব সমাজ পরিবর্তনের এজেন্ট হিসেবে কাজ করতে পারে। কৃষকের অধিকার সুরক্ষা, প্রাণপ্রকৃতি ও পরিবেশ সুরক্ষা, জলবায়ু পরিবর্তন ঝুঁকি রোধ বাল্যবিবাহ, মাদক, যৌন হয়রানি, র‌্যাগিং, বুলিং যুব সমাজ সচেতনতামূলক কার্যক্রম গ্রহণ করতে পারে।’


উল্লেখ্য, মতবিনিময় সভায় অংশগ্রহণকারীগণ বর্তমান কৃষিতে সমস্য ও জলবায়ূ পরিবর্তনের কারণ চিহ্নিত করে একটি কর্মপরিকল্পনা তৈরি করেন এবং অংশগ্রহণকারীগণ মজিরবর রহমান বিশ^াসের কৃষিপ্রতিবেশবিদ্যা শিখন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এছাড়াও কৃষিপ্রতিবেশ, প্রাণ প্রকৃতি সুরক্ষা ও জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় সংগঠিত হয়ে কাজ করার জন্য ছোট কালিয়াকৈর সবুজ সংহতি যুব সংগঠন নামে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়।

happy wheels 2

Comments